Why do we shout when angry?রেগে গেলে আমরা কেন চেঁচিয়ে উঠি ?

মূল্যবোধ : অহিংসা , শান্তি

সহ মূল্যবোধ : নিস্তব্ধতা , শান্তিপূর্ণshout

 

 

 

 

 

একজন মুনি এবং তার শিষ্যরা পবিত্র নদী গঙ্গার উদ্দ্যেশে তীর্থযাত্রা করেন যাতে তাঁরা শুদ্ধ  জলে ডুব দিতে  পারেন.  তাঁরা গঙ্গার তীরে যখন উপস্থিত , তাঁরা লক্ষ্য করেন যে একটা পরিবারের কয়েকজন সদস্য জোড় গলায় একে অপরের প্রতি রাগ প্রকাশ করছে. মুনি তার শিষ্যদের দিকে তাকিয়ে হাসলেন এবং জিজ্ঞেস করলেন :

“মানুষ রেগে গেলে কেন একে অপরের ওপরে  চেঁচিয়ে ওঠে  ? ”

শিষ্যরা কিছুক্ষণ চিন্তা করল, তাদের মধ্যে একজন উত্তরে বলল, “কারণ আমরা আমাদের শান্তিপূর্ণ ভাবটাকে হারিয়ে ফেলি, আমরা  চেঁচিয়ে উঠি .”

‘ কিন্তু, কেন একজন চেঁচাবে যখন অপর জন তার পাশেই রয়েছে ?তোমার যা বলার দরকার সেটা তুমি অপর জনকে মৃদু ভঙ্গিতেও বলতে পারো.’ মুনি জিজ্ঞেস করলেন.

শিষ্যরা নানা ধরণের উত্তর দিল কিন্তু কোনোটাই সন্তোষজনক হলো না .

শেষ পর্যন্ত মুনি কোমল  ভাষায়  ব্যাখা দিলেন .

” যখন দু জন ব্যক্তি একে অপরের প্রতি রেগে যায়, তাদের হৃদয়ের মধ্যে দুরত্বতা অনেক হয়ে যায়.সে দুরত্বটা ঢেকে তাদের  জোড় গলায় কথা বলা প্রয়োজন যাতে তারা একে অপরকে শুনতে পায়. যত বেশি রাগ ,তত জোড়ে তাদের  চেঁচিয়ে কথা বলতে হয়  যাতে তারা একে অপরের কথা শুনতে পায়, ওই বিশাল দুরত্বটাকে ঢেকে দিয়ে .

কি হয় যখন দু জন ব্যক্তি একে অপরকে ভালবাসে ?তারা একে অপররের প্রতি রেগে গিয়ে কথা বলে না কিন্তু নরম স্বরে কথা বলে ,কারণ তাদের হৃদয়ের অবস্থান খুব নিকট .তাদের মধ্যে দূরত্ব বলা যেতে পারে একেবারে অনুপস্থিত অথবা খুব কম …”

মুনি বলে চললেন , ” যখন তারা আরো গভীরে একে অপরকে ভালবাসে, তখন কি হয় ?তারা কথা বলে না, শুধু  ফিসফিস  করে এবং ভালবাসায় তারা একে অপরের আরো নিকট হয়ে যায়.শেষে, তাদের ফিসফিস করে কথা বলার প্রয়োজন পরে না কারণ তারা একে অপরের দিকে তাকিয়ে থাকে এবং   নিকট দু জন ব্যক্তির  মধ্যে এরকমটা তখন হতে পারে যখন একজন আরেকজনকে ভালবাসে .”

তিনি তাঁর শিষ্যদের দিকে তাকালেন এবং বললেন,

” তাই তুমি যখন তর্ক করবে তোমার হৃদয়কে  দূরে যেতে দিও না . এমন কোন কথা বোলো না যেটা একে অপরের মধ্যে দূরত্বকে আরো বাড়িয়ে দেয়, নয়ত এমন একদিন আসবে যেদিন দূরত্ব এমন বেড়ে যাবে যে পুনর্মিলন করা আর সম্ভব হবে না! ”

শিক্ষা:

রেগে গেলে চুপ করে থাকা হলো সর্বোত্তম উপায় . সেই সময় যে কথাগুলো বলি সেটা অন্যের ওপর এমন চাপ ফেলে যাই যেটা সংশোধন করা সম্ভব হয় না.রাগ নিজেদেরকে ভালোবাসার ব্যক্তির থেকে দূরে সরিয়ে দেয়.

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator  ( অনুবাদক ) —   Sinchita.

Advertisements

Action speaks greater than words— কথার থেকে বৃহত্তর হলো কর্ম .

 

stone

মূল্যবোধ : সঠিক আচরণ

সহ মূল্যবোধ : উদ্যোগ, কর্ম

একদিন একজন কৃষক একটা ছোট নগরের রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল যখন সে দেখে যে পথের মাঝখানে একটা বর পাথর রাখা আছে. সে অভিযোগ করে বলল  যে “কে এত  অসাবধান  যে এতো বড়একটা পাথর রাস্তায় রেখে দিয়েছে ?কেউ  কেন এটাকে সরায় না ?” সে অভিযোগ করতে করতে চলে গেল .

পরের দিন , গোয়ালার সাথে একই জিনিস হলো .সেও গজগজ করতে করতে চলে গেল কিন্ত পাথর টাকে সেরকম ভাবেই রেখে গেল .

তারপর একদিন, একজন শিক্ষার্থী এই পাথরটার সম্মুখীন হয় . ভয় পেয়ে যে কেউ হয়ত এটার ওপরে পড়ে গিয়ে আঘাত পাবে , এটাকে সারাবার সিধান্ত নিল .সে অনেকক্ষণ ধরে এবং শক্তহাতে একাই এটাকে সরালো এবং অবশেষে পাথরটা রাস্তা থেকে সরাতে সক্ষম হলো . সে ফিরে এসে দেখল যে যেখানে পাথরটা ছিল সেখানে একটা কাগজের টুকরো পড়ে আছে.

সে কাগজটা তুলল এবং সেটাকে খুলল. ভেতরে লেখা আছে , ” তুমি হলে এই রাষ্ট্রের সত্য সম্পদ .”

দু ধরণের মানুষ আছে .

যারা কথা বলে এবং যারা কাজ করে .

যারা কথা বলার ব্যক্তি তারা শুধু কথাই বলে, অন্যদিকে যারা কাজ করার ব্যক্তি তারা কাজই করে .

 

শিক্ষা: আমরা যদি কোন কিছুর সাথে জড়িত থাকতে না চাই , তাহলে সে বিষয়ে  সমলোচনা  করবার অধিকারও আমাদের নেই . আমাদের সেই পরিবর্তনটাতে  পরিণত হতে হবে যেটা আমরা এই বিশ্বে দেখতে চাই . এই পৃথিবীতে যে জায়গাটা আমরা দখল করে আছি সেই ভাড়াটা আমরা দিই সমাজের প্রতি সেবা করে .

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator  ( অনুবাদক ) —   Sinchita.

 

 

The goldfish bowl —গোল্ডফিশের পাত্র

 

মূল্যবোধ : সঠিক আচরণ

সহ মূল্যবোধ : অন্যের জন্য চিন্তা করা

Image result for goldfish

 

একজন ন- বছরের বাচ্চা স্কুলের টেবিলে বসে ছিল , আচমকা তার পায়ের পাতার কাছে  জলে ভরে যায় এবং তার প্যান্টের সামনেটা ভিজে যায়. তার মনে হলো তার হৃদয় যেন এখনি বন্ধ হয়ে যাবে কারণ সে সম্ভবত কল্পনা করতে পারছে না যে কিভাবে এরকম হলো .

এরকম আগে কখনো হয়নি এবং যখন ছেলেরা  এটা জানতে পারবে সে শেষ অব্দি কোনো কিছু শোনার অবস্থাতে থাকবে না .যখন মেয়েরা এটা জানতে পারবে ,সে যতদিন বাঁচবে তারা আর তার সাথে কথা বলবে না .

ছেলেটার মনে হলো তার হৃদয় যেন এক্ষুনি বন্ধ হয়ে যাবে , সে মাথা নিচু করে প্রার্থনা করল —

” হে ভগবান, এটা একটা বিশেষ অবস্থা ! আমার এখন সাহায্যের দরকার !এখন থেকে পাঁচ মিনিট পরে আমার একদম  মরণাপন্ন অবস্থা হবে .”

সে প্রার্থনা শেষ করে  তাকাতেই দেখে যে শিক্ষিকা আসছেন  এবং তাঁঁর চোখের দৃষ্টি থেকে মনে হচ্ছে যেন সে  ধরা পরে গেছে .

শিক্ষিকা যখন  তার দিকে হেঁটে আসছিলেন , একজন সহপাঠী যার নাম সুসিই একটা জল ভর্তি গোল্ডফিশের পাত্র ধরে আনছিল .সুসিই  শিক্ষিকার  সামনে পড়ে যায় এবং অদুভূত ভাবে জলের পাত্রটা ছেলেটার কোলে ফেলে দেয় .

ছেলেটা  রেগে যাবার ভান করে , তবে এই পুরো সময়টা সে শুধু নিজেকে বলে : ” ধন্যবাদ, ভগবান ! ধন্যবাদ, ভগবান !”

আশ্চর্য্য ভাবে , উপহাসের বিষয়বস্তুর বদলে , ছেলেটা সহানুভূতির বিষয়বস্তু  হয়ে যায় . শিক্ষিকা তাকে তাড়াতাড়ি নিচে নিয়ে যান  এবং অন্য হাফ প্যান্ট দেন  পরবার জন্য যে সময়ে তার নিজের প্যান্টটাকে শুকোতে দেওয়া হয় . বাকি শিক্ষার্থীরা হাঁটু হয়ে টেবিলের আশপাশটা পরিষ্কার করতে শুরু করে. সহানুভূতিটা  অপূর্ব. কিন্তু জীবনের যেমন  পরিস্থিতি , যে উপহাসটা তার  উদ্দেশে   হবার  কথা ছিল সেটা এখন অন্য কারুর ওপরে পরিবর্তন হয়ে গেছে — সুসিই .

সে সাহায্য করতে চাইছিল , কিন্ত সবাই তাকে চলে যেতে বলল .” তুমি অনেক করেছ , বোকা ! ” শেষে, দিন যখন শেষ হতে যায় , তারা যখন বাসের জন্য অপেক্ষা করছিল , ছেলেটা সুসিইর  কাছে হেঁটে গিয়ে ফিশফিশ করে বলল , “তুমি এটা জেনেশুনে করেছিলে , তাই নয় কি ? ”

সুসিই  ফিশফিশ করে উত্তর দিল , “আমিও একবার আমার জামা ভিজিয়ে ফেলেছিলাম . ”

শিক্ষা :

ভাল করবার জন্য আমাদের চারপাশে সর্বদা যে সুযোগগুলো আছে সেগুলো দেখবার জন্য ভগবান যেন আমাদেরকে  সাহায্য করেন. সর্বদা সাহায্য করবে , কোন সময় দুঃখ দেবে না. সবসময় মানুষকে সাহায্য করতে চেষ্টা করবে এবং প্রধাণত যদি তুমি একই ধরণের সমস্যার সম্মখীন হয়ে থাকো.

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator  ( অনুবাদক ) —   Sinchita.

The perfectionist sculptor— Always give your best. নিখুঁত ভাস্কর — সবসময় তোমার সেরা প্রদান করো.

মূল্যবোধ  :  উৎসর্গ , স্বয়ং মূল্য , সঠিক আচরণ

সহ মূল্যবোধ : যে নিখুঁত হতে চায়

 

 

মন্দির তৈরীর   কাজের সময় যখন ভাস্কর ( sculptor) ঠাকুরের মূর্তি গড়তে ব্যস্ত তখন একজন ভদ্রলোক সেখানে উপস্থিত হয় .আচমকা সে লক্ষ্য করে একই মূর্তি কাছে পরে আছে . বিস্মিত , সে ভাস্কর(sculptor) কে জিজ্ঞেস করল , ” তোমার কি একই ঠাকুরের দুটো মূর্তি লাগবে ?”

“না ” , সে বলল না তাকিয়ে , “আমাদের শুধু  একটাই লাগবে , কিন্তু প্রথমটা শেষ পর্যায়ে গিয়ে নষ্ট হয়ে গেল .”

ভদ্রলোক মূর্তিটাকে  খুঁটিয়ে দেখল এবং আপাত দৃষ্টিতে কোন খুঁত দেখতে পেলো না . “কোথায় খারাপ হয়েছে ? ” সে জিজ্ঞেস করল .

“মূর্তিটার  নাকে একটা দাগ আছে , ” ভাস্কর(sculptor) বলল , তখনও কাজে ব্যস্ত .

” তুমি এই মূর্তিটা কোথায় রাখবে ?”

ভাস্কর(sculptor) উত্তরে বলল যে একটা কুঁড়ি ফুট উঁচু স্তম্ভের ওপরে এটা রাখা হবে.

“যদি মূর্তিটাকে এতো  দূরে রাখা হয় , তাহলে কে জানতে যাবে যে নাকে একটা দাগ আছে ? ” ভদ্রলোক বলল .

ভাস্কর (sculptor)তার কাজ বন্ধ করল ,  ভদ্রলোকের দিকে তাকিয়ে হেসে বলল ,

” আমি জানি  এবং ভগবান জানেন !”

শিক্ষা : তোমার কাজটার কেউ প্রশংসা করবে কি করবে না সেটার কথা না ভেবে , কাজটা  শ্রেষ্ঠতর করার ইচ্ছা থাকা প্রয়োজন .  কোন কিছু শ্রেষ্ঠ করবার ইচ্ছাটা ভেতর থেকে আসে , বাইরে থেকে নয় . আজই তোমার করণীয় কাজটাকে শ্রেষ্ঠ ভাবে করো— এটা প্রয়োজন নয় কি কেউ সেটাকে লক্ষ্য করবে কিন্তু সেটা তোমার পরিতৃপ্তির জন্য প্রয়োজন .

সৌজন্য : http://academictips.org/blogs/the-perfectionist-sculptor/

 

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator  ( অনুবাদক ) —   Sinchita.

The Lord cares for the feeling behind the act . কর্মের পেছনে অনুভূতিকে ঈশ্বর গুরুত্ব দেন.

 

মূল্যবোধ : ভালবাসা

সহ মূল্যবোধ : সমবেদনা

Image result for angels images

 

 

মেক্কাতে  মসজিদের  একটা  কোণে আবদুল্লাহ ঘুমোছিলো,  তার  মাথার ওপরে দুই  ফেরেস্তার কথোপকথনে সে উঠে পরে . তারা সৌভাগ্যশালী মানুষদের একটা তালিকা বানাছিলো , তখন একজন ফেরেস্তা বললেন যে সিকান্দার  শহরে  মাহবুব নামক একজন আছে  যে প্রথম স্থান পাওয়ার যোগ্য যদিও এই পবিত্র শহরে তীর্থযাত্রায় সে আসেনি .

এটা  শুনে আবদুল্লাহ  সিকান্দার  শহরে যায়  এবং  খোঁজ পায় যে সে ( মাহবুব ) একজন মুচি এবং সে অন্য লোকেদের জুতো সেলাই করে .  সে ক্ষুধাকাতর এবং দরিদ্র এবং তার যা আয় হয় তাতে খিদে মেটাবার জন্য যথেষ্ট নয় . জীবনে অত্যন্ত ত্যাগ এবং কষ্টের বিনিময়ে সে এই কয়েক বছরে  কিছু তামা সঞ্চিত করে .  একদিন, সে তার সমস্ত পুঁজি একটা বিশেষ খাবার তৈরী করবার জন্য ব্যবহার করেন , যেটা সে ঠিক করে তার অন্তুঃসত্ত্বা  স্ত্রীকে চমকপ্রদ উপহার হিসেবে দেবে . যখন সে বাড়ির  দিকে যাচ্ছিল তখন সে এক ক্ষুধার্ত ভিখারীর কান্না শুনতে পায় যে কিনা অত্যন্ত খিদের জ্বালায় ছটফট করছিল . মাহবুব আর এগোতে পারল না , সে পাত্রের এই মূল্যবান খাবারটা এই লোকটাকে দিয়ে দিল এবং তার পাশে বসে দেখল যে তৃপ্তিতে তার জীর্ণশীর্ণ  মুখ কিভাবে উজ্জ্বল হয়ে উঠছে .  এই কাজটা তাকে সৌভাগ্যশালীদের রেজিস্টারে  একটা সম্মানের স্থান দিল , এমন একটা জায়গায় যেটা মেক্কাতে গিয়ে তীর্থযাত্রীরা লক্ষ লক্ষ দিনার দান করেও অর্জন করতে পারবে না . ঈশ্বর কর্মের পেছনে অনুভূতিকে গুরুত্ব দেন , আড়ম্বর এবং লোক দেখানো জিনিসকে নয় .

শিক্ষা : যতটা সাহায্য আমরা  অন্য কারুর  জন্য করি সেটার প্রকৃতিটাকে  গণ্য করা হয় , পরিমাণ টাকে নয় . একটা সামান্য সাহায্য যেটা ভালবাসা এবং সমবেদনার সাথে করা হয়, সেটা  অনেক বেশি   মূল্যবান  যখন সেটা তুলনা করা হয়  একটা বড় আকরের সাহায্যের সাথে যেখানে ভালবাসার কোন অনুভূতি নেই .

সৌজন্যে :  চিন্না কথা– ভগবান শ্রী সত্য সাই বাবা

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator  ( অনুবাদক ) —   Sinchita

Not A One — Selfless Love শুধু একটা নয় — নিঃস্বার্থ ভালবাসা

Image result for valentines day

মূল্যবোধ : ভালবাসা

সহ মূল্যবোধ : যত্ন নেওয়া , শর্তহীন  ভালবাসা

ছোট চ্যাড  একজন লাজুক , শান্ত যুবক ছিল . একদিন বাড়ি ফিরে সে মাকে বলল যে স্কুলের সবার জন্য সে ভ্যালেনটাইন কার্ড  বানাবে .  তার মার মন ভেঙ্গে গেল. তিনি ভাবলেন , ” আমার ইচ্ছা যে সে যাতে এটা না করে ” কারণ স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে ছেলেমেয়েদের তিনি দেখেছেন . তাঁর চ্যাড  সবসময় তাদের পেছনে থাকে . তারা হাসাহাসি করে , একে অপরের সাথে কথা বলতে থাকে . কিন্তু চ্যাড কখনো তাদের মধ্যে সামিল থাকে  না .তবুও , তিনি  স্থির করলেন যে ছেলেকে  তিনি সমর্থন করবেন . তাই তিনি কাগজ এবং আঠা এবং রঙ্গিন খড়ি কিনলেন . তিন সপ্তাহ ধরে রাতের পর রাত  যত্ন করে এবং  কষ্ট  করে চ্যাড  ৩৫টা ভ্যালেনটাইন কার্ড  বানালো .

Image result for valentines day card funny monkeys

ভ্যালেনটাইনস্  ডে  এসে গেল এবং চ্যাড খুব  প্রফুল্লিত  এবং উত্তেজিত বোধ করছিল .  সে  সতর্কভাবে সেগুলো একটার ওপর একটা ব্যাগে রাখল এবং  বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দিল . তার মা স্থির করলেন যে তিনি তার প্রিয় কুকি বানাবেন এবং এক গ্লাস ঠান্ডা দুধের সাথে সুন্দর এবং উষ্ণ এগুলো পরিবেশন করবেন যখন সে স্কুল থেকে ফিরবে . তিনি জানতেন যে সে মনক্ষুন্ন হয়ে ফিরবে এবং এগুলো  হয়ত  তার বেদনা কমাতে সাহায্য করবে . ওনার ভেবে দুঃখ হলো যে সে হয়তো অনেক ভ্যালেনটাইন  পাবে না — হতে পারে একটাও না .

সেদিন দুপুরে  টেবিলে  বসে  উনি কুকি এবং দুধ  খেলেন. বাইরে ছেলে – মেয়েদের কোলাহল শুনে উনি জানলা দিয়ে বাইরে দেখলেন . নিশ্চিত ভাবে  তারা আসছে , হেসে এবং আনন্দে  মগ্ন হয়ে এবং যথারীতি , চ্যাড  পেছনে ছিল . অন্যদিনের তুলনায় আজ সে একটু  তাড়াতাড়ি  হাঁটছিল . তিনি  সম্পূর্ণভাবে          ভেবেছিলেন যে ঘরে দুকে সে কান্নায় ভেসে যাবে  . তিনি লক্ষ্য  করলেন যে তার হাত খালি ছিল এবং সে দরজাটা যখন খুলল তিনি কান্না চেপে রাখার চেষ্টা করলেন .

” মা তোমার জন্যে কুকি এবং দুধ রেখেছে  , ”  তিনি বললেন .

কিন্ত সে যেন ওনার কথায় কানই দিল না . সে তাড়াতাড়ি  এগিয়ে গেল , মুখ যেন  দীপ্যমান এবং সে শুধু এটুকুই  বলতে পারল :

” শুধু একটা নয় , শুধু একটা নয় .”

ওনার  মন ভেঙ্গে গেল .

এবং তার পর সে বলল , ” আমি কাউকে ভুলে যাই নি , একজন কেও না ! ”

শিক্ষা:  যে কোন  ব্যক্তির উচিত  স্নেহময় কাজে নিযুক্ত হওয়া কারণ এটাই  সঠিক কাজ এবং এর  কারণে  নয় যে আমরা এর বদলে কিছু পাবো . এটা  হচ্ছে ভালবাসার  সর্বোচ্ছ একটা রূপ —নিঃস্বার্থ  ভালবাসা ,  পবিত্র ভালবাসা যেটা গড়ে তোলা সহজ নয় .  নিত্য মনোনিবেশ আমাদের এই পথ অনুসরণ করতে সাহায্য করবে .

 

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator ( অনুবাদক ) —-  Sinchita

The Golden Rule : Love Can Transform একটা সুবর্ণ বিধি : ভালবাসার দ্বারা রূপান্তরিত হওয়া .

 

MIL dil

 

 

মূল্যবোধ :  ভালবাসা

সহ মূল্যবোধ : গুরুজনদের ভালবাসা এবং সম্মান করা

অনেক  সময় আগের কথা , লি – লি নামের একজন মহিলা  বিয়ের পরে তার স্বামী এবং শাশুড়ির সাথে থাকতে  শুরু করে . কিছু দিনের মধ্যেই , লি – লি বুঝতে পারে যে, সে তার শাশুড়ির সাথে মানিয়ে থাকতে পারছে না .  তাদের ব্যক্তিত্ব ভীষণ রকমের আলাদা  এবং তার শাশুড়ির অনেক অভ্যাসই  তার ক্রোধের কারণ হয়ে উঠত  . তার ওপরে , তিনি  প্রতিনিয়ত লি-লির সমলোচনা করতেন ……. দিনের পর দিন , সপ্তাহের পর সপ্তাহ অতিবাহিত হয়ে গেল . লি – লি এবং তার শাশুড়ির  তর্ক এবং ঝগড়া কখনই থামত না . তবে পরিস্থিতি আরো খারাপ হওয়ার  কারণ প্রাচীন চীনা প্রথা অনুযায়ী , লি -লি কে তার শাশুড়ির কাছে মাথা নত করতে হবে এবং তাঁর প্রতিটি ইচ্ছা পালন করতে হবে . বাড়িতে এই ধরণের  রাগ এবং অশান্তির জন্য বেচারা স্বামীর অবস্থা খুব বেদনাদায়ক হয়ে ওঠে .

শেষে , লি-লি তার শাশুড়ির এই  মেজাজ এবং  কর্তৃত্ব  আর সইতে পারল না এবং  এই বিষয়ে কিছু ব্যবস্থা নেওয়ার  কথা ভাবল . লি-লি  দেখা করতে গেল তার বাবার ভাল বন্ধু , মিস্টার . হুয়াং- এর সাথে যিনি গাছ -গাছড়া বেচতেন . সে এই সমস্যার কথা  ওনাকে জানালেন এবং সামান্য পরিমাণ বিষ কিনতে চাইলেন যাতে এই সমস্য চিরদিনের জন্য বন্ধ হয়ে যায় .

মিস্টার হুয়াং কিছুক্ষণ ভাবলেন  এবং সবশেষে বললেন : ” লি -লি , আমি তোমার এই সমস্য সমাধান করতে সাহায্য করব কিন্তু  তোমাকে আমার কথা শুনতে হবে এবং আমি যা বলছি সেই আদেশ মানতে হবে .”

লি-লি বলল : ” হ্যাঁ , মিস্টার  হুয়াং , আপনি  আমায়  যা করতে বলবেন আমি তাই  করব . ”

মিস্টার .হুয়াং  পেছনের ঘরে গেলেন এবং কয়েক মিনিট বাদে  গাছ -গাছড়ার একটা প্যাকেট নিয়ে ফিরলেন . তিনি লি -লি কে বললেন , ” যে বিষ  খুব তাড়াতাড়ি  কাজ করে সেরকম কিছু তুমি তোমার শাশুড়িকে  দিতে  পারবে না কারণ  এতে মানুষের মধ্যে সন্দেহ জাগবে .  তাই  আমি অনেকগুলো গাছ -গাছড়া  দিলাম  যেগুলো ধীরে ধীরে  শরীরে বিষ তৈরী করবে . একদিন অন্তর একদিন সামান্য পর্ক অথবা চিকেন তৈরী করবে এবং  ওনার  বাটিতে সামান্য  এই জড়িবুটি দিয়ে দেবে . তবে , উনি যখন মারা যাবে তখন যাতে তোমায় কেউ সন্দেহ না করে  সেই কারণে খুব সতর্ক থাকবে এবং ওনার প্রতি বন্ধুসুলভ  ব্যবহার করবে .  ওনার  সাথে তর্ক করবে না , ওনার ইচ্ছা মেনে চলবে এবং ওনার সাথে রানির  মতো ব্যবহার করবে .  ”

 

 

Image result for herbs

 

 

লি -লি কি ভীষণ খুশি হলো .  সে মিস্টার . হুয়াংকে ধন্যবাদ জানিয়ে তাড়াতাড়ি   বাড়ি গেল যাতে তার শাশুড়িকে হত্যা করার চক্রান্ত  শুরু করা যায় . সপ্তাহ কেটে গেল, মাস কেটে গেল এবং একদিন অন্তর একদিন , লি-লি তার শাশুড়িকে এই বিশেষ ভাবে তৈরী করা খাবার টা  দিত . সে এও মনে রেখেছিল যে হুয়াং  কি বলেছিলেন যাতে কারুর মনে কোন সন্দেহ না জাগে , তাই সে তার রাগ সংবরণ করে , তার শাশুড়ির আদেশ মেনে চলে এবং ওনার  সাথে  নিজের মায়ের  মতো ব্যবহার করতে শুরু করে . প্রায় ছ মাস পরে বাড়ির পরিস্থিতি সম্পূর্ণ  বদলে গেছে . লি -লি রাগ সংবরণ করার এমন অভ্যাস করেছে যে সে এখন  কোন কিছুতেই  রেগে যাই না বা বিচলিত বোধ করে না . ছ মাসের মধ্যে তার কোন তর্ক – বিতর্ক হয়নি শাশুড়ির সাথে যিনি এখন অনেক মলিন স্বভাবের হয়ে গেছে এবং  তার সাথে মানিয়ে চলা যায় . লি -লি -এর প্রতি শাশুড়ির মনোভাব বদলে গেছে , এখন উনি লি-লি কে মেয়ের মতো ভালবাসে . তিনি  বন্ধুবান্ধব এবং আত্বীয়স্বজনদের বলে বেড়াতেন যে লি -লি হলো সর্বোত্তম  ছেলের বউ . লি -লি এবং তার শাশুড়ি  এখন নিজের মা এবং মেয়ের মত একে অপরের সাথে ব্যবহার করে . যা হচ্ছে সেটা  দেখে লি -লির  স্বামী খুব খুশি .

একদিন লি-লি মিস্টার  হুয়াং এর সাথে দেখা করতে এলো  এবং আবার তাঁর   সাহায্য চাইল  .  সে বলল : ” প্রিয় , মিস্টার . হুয়াং দয়া করে আমায়   সাহায্য  করুন  যাতে  বিষের দ্বারা আমার শাশুড়ি মারা  না যান . তিনি এখন বদলে  গিয়ে  ভাল স্বভাবের হয়ে গেছেন এবং আমি ওনাকে মায়ের মতো  ভালবাসি . আমি চাই না আমি যে বিষ  দিয়েছি তার দ্বারা ওনার মৃত্যু হোক . ”

মিস্টার . হুয়াং  হাসলেন এবং মাথা নেড়ে বললেন : ” লি-লি  , চিন্তা করবার কিছু নেই . আমি তোমায় কখনো  কোনো বিষ দিইনি . আমি যে গাছ -গাছড়া তোমায় দিয়েছিলাম সেগুলো হলো  ভিটামিন জেটার দ্বারা তাঁর শরীরের উন্নতি হবে .  যে বিষটা ছিল সেটা হলো তোমার মনে এবং ওনার প্রতি তোমার ব্যবহারে , কিন্তু সেটাও ধুয়ে গেছে তোমার ভালবাসার দ্বারা যেটা তুমি ওনাকে দিয়েছ . ”

নীতিকথা : বন্ধুগণ , তোমারা কি ভেবে দেখেছ যে তুমি অপরের  সাথে  যে ভাবে ব্যবহার করবে সেই একই ধরণের ব্যবহার তুমি পাবে ?

চীন দেশে   এটা  বলা হয় :  যে ব্যক্তি অন্যকে ভালবাসে সেও ভালবাসা  অর্জন করে .  একটা সুবর্ণ বিধি.

শিক্ষা :  ভালবাসা  হলো ক্ষমতাশালী  অস্ত্র  যেটা    মানুষকে রুপান্তরিত করতে পারে . এটা সময় নিতে পারে কিন্ত ভালবাসাকে কখনো পরিত্যাগ  কোরোনা .  সর্বশেষ বিজয় হলো ভালবাসা .  যদিও এর জন্য দরকার     যথেষ্ঠ  অধ্যাবসায়   এবং  ধৈর্য  .

 

http://saibalsankaarbangla.wordpress.com

https://www.facebook.com/moralvaluestoriesbengali/ (Naitik Kahini Samagra )

Translator ( অনুবাদক ) :   Sinchita .